ত্বকের সৌন্দর্য চর্চায় মধু ব্যবহার

ত্বকের সৌন্দর্য চর্চায় মধু

মধু রূপ সচেতন নারীদের সৌন্দর্য চর্চার প্রধান উপাদান। মধু তৈলাক্ত বা শুষ্ক উভয় ত্বকের জন্য প্রযোজ্য। মধু ত্বকের সকল ধরনের দাগ, বলিরেখা, ব্রণ প্রভৃতি দূর করতে সহায্য করে। মধুকে রয়েছে ময়েশ্চরাইজার তাই একে বলা হয় প্রাকৃতিক ময়েশ্চরাইজার। আপনি কিভাবে ঘরে বসে মধু দিয়ে রূপচর্চা করবেন তা জানার জন্য আমাদের কন্টেইনিট পড়ুন।

ত্বকের সৌন্দর্য চর্চায় মধু ব্যবহার বিধি:

মধু ও আটা= আপনি যখন বাহির থেকে ঘরে আসবেন তখন মধু ও আটা মিশিয়ে প্যাক তৈরী করুন। এই প্যাক ভাল করে ত্বকে লাগিয়ে ১০ মিনিট পরে ঠাণ্ডা পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন। এ প্যাক ব্যবহারে আপনার ত্বকের সকল দাগ দূর হয়ে ত্বক করবে উজ্জ্বল।
মধু ও বাদাম= অল্প কয়েকটি বাদাম পানিতে ভিজিয়ে রেখে কিছু সময় পর বাদামগুলো পিসে পেষ্ট করে নিন। এ বাদাম পেষ্টের সাথে মধু মিশিয়ে ভালোভাবে ত্বকে লাগিয়ে ১৫/২০ মিনিট পরে ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এ প্যাক সপ্তাহে ৩ দিন ব্যবহার করুন।
মধু ও ময়দা= ত্বকের বলিরেখা ও সকল দাগ দূর করার জন্য ময়দার সাথে মধু ও পানি মিশিয়ে ভাল করে মুখে লাগান। এই মিশ্রণটি শুকিয়ে এলে সামান্য পানি দিয়ে ভিজিয়ে কিছু সময় ম্যাসাজ করে ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন এবং এ প্যাক সপ্তাহে এক দিন পর এক দিন ব্যবহার করুন।
মধু, শসা ও লেবু= তৈলাক্ত ত্বকের জন্য শসার সাথে মধু ও লেবুর রস মিশিয়ে একটি ফেসপ্যাক তৈরী করুন এবং তুলার প্যাড দিয়ে আলতোভাবে লাগিয়ে ৩০ মিনিট রেখে ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এ ফেসপ্যাক সপ্তাহে ২ দিন ব্যবহার করুন।
মধু ও টমেটোর রস= ত্বক কোমল ও মসৃণ রাখার জন্য মধু সাথে টমেটোর রস মিশিয়ে তৈরী করুন একটি ন্যাচারাল টোনার। এ প্যাক প্রত্যহ ব্যবহার করুন।
মধু, চিনি ও বেসন= ত্বক পরিস্কার রাখার জন্য মধু, চিনি ও বেসনের সাথে অল্প পরিমাণ পানি মিশিয়ে ঘন পেষ্ট তৈরী করুন। এ ঘন পেষ্টটি সাবানের পরিবর্তে মুখের ত্বক ও শরীরে লাগাবেন।
মধু ও চালের গুঁড়া= ত্বকের ডেডসেল দূর করার জন্য মধুর সাথে চালের গুঁড়া মিশিয়ে পেষ্ট তৈরী করুন। এ পেষ্ট মুখের ত্বকে লাগিয়ে ম্যাসাজ করুন যতক্ষণ পর্যন্ত শুষ্ক না লাগবে। ম্যাসাজের পর শুষ্ক অনুভব হলে হালকা গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এ প্যাক সপ্তাহে ২ দিন ব্যবহার করুন।
মধু, কমলার রস ও গোলাপ জল= ত্বকের সতেজতা বৃদ্ধিতে মধুর সাথে কমলার রস ও গোলাপ জল মিশিয়ে মুখে লাগিয়ে ১৫ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন।
এছাড়াও মধুতে বিদ্যমান পটাশিয়াম যা ব্যাকটেরিয়াকে ধ্বংস করে ত্বকের এন্ট্রিবায়টিক হিসাবে কাজ করে ত্বকে সুরক্ষা প্রদান করে। তাই নিয়মিত মধু সেবন করলে ত্বকের সৌন্দর্য ভিতর থেকে ফুটে উঠে এবং আপনি হয়ে উঠবেন একজন বিশ্ব সুন্দরীর সামিল

 ধন্যবাদ  
=বাংলা হাউ ডট কম=
((www.banglahow.com))