পুরোপুরি মেছতা দূর করার উপায় (প্রাকৃতিক)

মেছতা দূর করার উপায় (প্রাকৃতিক)

অপরিচ্ছন্ন ত্বক মেছতা হওয়া অন্যতম কারণ। হয়তো অনেকেই মেছতার সমস্যায় ভুগছেন। তবে প্রাকৃতিক উপাদান ব্যবহার করে এ সমস্যা সমাধান করা একেবারেই সম্ভব। আসুন আমরা প্রাকৃতিক উপাদান ও সার্জারির মাধ্যমে এ মেছতার সমস্যা দূর করে ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধিতে সচেষ্ট হই।

মেছতার জন্য প্রাকৃতিক উপাদানের ঘরোয়া টিপসঃ

মেছতা দূর করার জন্য প্রাকৃতিক উপাদানের টিপস্‌ গুলো অনুসরণ করে ব্যবহার করলে মেছতা দূর হয়ে আপনার ত্বক উজ্জ্বল, নরম-কোমল ও ফর্সা হবে। নিম্নে প্রাকৃতিক উপাদানের টিপস্‌ সমূহ দেখুন।

লেবুঃ

ত্বকের উজ্জ্বলতা ও ত্বকের কালো দাগ দূর করতে লেবু বিকল্প নেই। লেবুর সাইট্রিক এসিড ব্লিচিং এর মতো কাজ করে ত্বকের অয়েলি ভাব শোষণ করে এবং ব্যাকটেরিয়ার সংক্রমণের হাত থেকে রক্ষা করে।

* সতেজ লেবুর রস ত্বকে লাগিয়ে ১৫/২০ মিনিট রেখে পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন এবং এ লেবুর রস প্রত্যেহ বা সপ্তাহে ১দিন ব্যবহার করে নিন।

* লেবুর রস ও ১টি ডিম একত্রে মিশিয়ে ত্বকে ব্যবহার করুন। আধা ঘন্টা রাখার পর পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এভাবে সপ্তাহে দুই বার ব্যবহার করুন। এর ফলে আপনার ত্বকের রুক্ষ্মতা দূর করে ত্বককে নরম-কোমল ও উজ্জ্বলতা বৃদ্ধিতে সাহায্য করে।

ঘৃতকুমারী (অ্যালোভেরা):

* ঘৃতকুমারী মেছতা দূর করার একটি কার্যকারী উপাদান। আপনি ঘৃতকুমারীর জেল মুখমন্ডলে ভালোভাবে লাগাবেন এবং সম্পূর্ন শুকিয়ে গেলে মুখমন্ডল পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলবেন। এভাবে সপ্তাহে দুই বার ব্যবহার করুন।

* ঘৃতকুমারীর ১টি পাতা, মধু এবং ১টি ছোট্র শসা পিশে মিহিন করে পেস্ট তৈরি করুন। এই পেস্ট মেছতার উপর লাগিয়ে ১৫ মিনিট রাখুন এবং পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এভাবে সপ্তাহে দুই বার ব্যবহার করুন।

* ঘৃতকুমারী জেল ২ চা-চামচ, ১ চা-চামচ লেবুর রস এবং চিনি একত্রে মিশিয়ে মেছতার উপর লাগিয়ে আঙ্গুল দিয়ে আলতোভাবে কিছু সময় ঘষুন। ১৫ মিনিট রাখার পর পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে ২/৩ দিন ব্যবহার করুন।

মুলতানি মাটি:

মুলতানি মাটি ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধিতে অধিক কার্যকারী। মুলতানি মাটি মুখমন্ডলের ত্বকের মরা কোষ পরিষ্কার করে এবং এক্সট্রা অয়েল শুষে নেয়। এ মুলতানি মাটি ত্বককে ফর্সা ও উজ্জ্বলতা বৃদ্ধিতে সাহায্যে করে।

* শসার রস, লেবুর রস, সবুজ চা, গোলাপজল, এবং পানি ও মুলতানি মাটি একত্রে মিশিয়ে মাস্ক বা পেস্ট তৈরি করুন। এ পেস্ট আপনার ত্বকে লাগিয়ে রাখুন এবং ১৫/২০ মিনিট পর পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

* ১ চা-চামচ টমেটোর রস, চন্দন গুঁড়া এবং ২ চা-চামচ মুলতানি মাটি একত্রে মিশিয়ে মাস্ক বা পেস্ট তৈরি করুন এবং ত্বকে লাগিয়ে ২০ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন। এভাবে সপ্তাহে ২ দিন ব্যবহার করুন।

স্ট্রবেরিঃ

২/৩টি স্টবেরি চটকে নিয়ে তার সাথে ২ চা-চামচ দই এবং মধু মিশিয়ে ত্বকে লাগেয়ে আলতোভাবে ম্যাসেজ করুন এবং ১০/১৫ মিনিট পর পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।এ স্টবেরিতে আছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি, হাইড্রোক্সি এসিড, স্যালিক এডিস, ল্যালিজিক এসিড ইত্যাদি। স্টবেরি আপনার ত্বকের মরা কোষ, দাগ, একনে এবং ফাটা দূর করে ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি করে।

টমেটোঃ

টমেটোর রস ত্বকে লাগিয়ে ম্যাসেজ করুন এবং ১০/১৫ মিনিট পর পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এ রস প্রত্যেহ বা সপ্তাহে ৩/৪ দিন ব্যবহার করবেন। টমেটোতে আছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি। যা ত্বকের কালো দাগ দূর করে ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি সাহায্য করে।

মধু ও টকদইঃ

২/৩ চা-চামচ মধু ও সম-পরিমাণ টকদই মিশিয়ে পেস্টের মতো তৈরি করুন। এ পেস্ট ত্বকে লাগিয়ে ৩০ মিনিট রেখে ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এ পেস্ট এক দিন পর এক দিন ব্যবহার করুন।

দারুচিনি ও দুধঃ

দারুচিনি মেছতা দূর করার একটি গুরুত্বপূর্ণ উপাদান। আপনার হাতের দুই আঙ্গুল দ্বারা ১ চিমটি দারুচিনির গুঁড়া এবং দুধের সর একত্র করে মিশিয়ে নিন। এখন মেছতার উপর লাগিয়ে শুকানো পর্যন্ত অপেক্ষা করুন। শুকিয়ে গেলে পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

আলুঃ

আলুর রস মেছতা দূর করার জন্য অপরিহার্য। এ রস আপনার চোখের কালো দাগ (ডার্ক সার্কেল) দূর করে।

মেছতা দূর করার জন্য উপরিউক্ত প্রাকৃতিক উপাদানের বিভিন্ন ঘরোয়া টিপস্‌-সমূহ অনুসরণ করে ব্যবহার করুন। এর ফলে পুরোপুরি মেছতার দাগ দূর হবে বলে আমাদের দৃঢ় বিশ্বাস। এছাড়া্ও প্রাকৃতিক উপাদান ব্যবহার করা কষ্টসাধ্য বিধায় আপনি ক্রিম অথবা সার্জারি চিকিৎসা নিতে পারেন।

*** “সার্জারি চিকিৎসা সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে” ***

এখানে ক্লিক করুন- (সার্জারি চিকিৎসা)

“ধন্যবাদ”

Be the first to comment

Leave a Reply